ইউএস-বাংলা : রমেকের চিকিৎসক শাওন আহত স্ত্রী নিহত

প্রবাসীর দিগন্ত | ডেস্ক রিপোর্ট : মার্চ ১৩, ২০১৮

নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. রিজওয়ানুল হক শাওন বেঁচে গেলেও তার স্ত্রী চিকিৎসক তাহিরা তানভীর শশি মারা গেছেন।

দুজনকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর স্ত্রী শশি মারা যান। আশঙ্কাজনক অবস্থায় নেপালের ওম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রিজওয়ানুল হক শাওন। তার শরীরের ৫০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে। দুর্ঘটনার পর রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক শাওনের বন্ধু চিকিৎসক কামরুল হুদা আপেল এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি সার্বক্ষণিক নেপালে তাদের শিক্ষার্থীর মাধ্যমে এসব তথ্য পাচ্ছেন। চিকিৎসক আপেল জানান, তার বন্ধু রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ৩৩তম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। তিনি সার্জারি বিভাগে সহকারী রেজিস্ট্রার পদে কর্মরত ছিলেন। কয়েকদিন আগে ছুটি নেন হাসপাতাল থেকে। এরপর ঢাকায় গিয়ে স্ত্রীকে নিয়ে ইউএস-বাংলার বিমানে নেপালে যাচ্ছিলেন ঘুরতে। ওই বিমানের যাত্রীদের নামের যে তালিকা দেওয়া হয়েছে তাতে শাওন ও শশির নাম রয়েছে।

চিকিৎসক আপেল জানান, দুর্ঘটনার পরপরই নেপালে আমাদের কয়েকজন ছাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করি। তারা দ্রুত সেখানে গিয়ে খোঁজখবর নেন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রিজওয়ানুল হক শাওন এবং তার স্ত্রী তাহিরা তানভীর শশীর ছবি পাঠান। এতে তারা জানান, শশী নেপালের কাঠমান্ডুর ওম হাসপাতালে আইসিইউতে মারা গেছেন।

চিকিৎসক রিজওয়ানুল হক শাওনের বাড়ি ঢাকায়। তিনি রংপুরে ধাপ সাগরপাড়ায় ভাড়া বাড়িতে পরিবারসহ থাকতেন।

রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক মোস্তাফিজার রহমান পাভেল বলেন, ‘রিজওয়ানুল হক শাওন ভাল চিকিৎসক ছিলেন। তিনি নিষ্ঠার সঙ্গে তার দায়িত্ব পালন করতেন। তার এমন খবর পেয়ে আমরা মর্মাহত।’

এ ব্যাপারে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শাহী ফারজানা তাসমিন জানান, চিকিৎসক রিজওয়ানুল হক শাওন মেধাবী শিক্ষার্থী ছিলেন। তার এমন পরিণতি মেনে নেওয়া যায় না।

তথ্য:

বিভাগ:

প্রকাশ: মার্চ ১৩, ২০১৮

প্রতিবেদক: প্রবাসীর দিগন্ত

সর্বমোট পড়েছেন: 390 জন

মন্তব্য: 0 টি