ক্ষমতার পালাবদলে বুলডোজারে ভেঙে দেওয়া হলো লেনিনের ও মার্কসের মূর্তি

প্রবাসীর দিগন্ত | প্রবাসীরদিগন্ত ডেস্ক : মার্চ ৬, ২০১৮

নির্বাচনী ফল ঘোষণার পর ভারতের ত্রিপুরার রাজ্যে হামলা, ভাঙচুর পার্টি অফিস ও ঘরবাড়িতে আগুন দেয়া হচ্ছে। ভয়ে আতঙ্কে অনেকে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে বলেও খবর পাওয়া যাচ্ছে। বুলডোজার দিয়ে ভাঙা হয়েছে লেনিনের মূর্তি।

সিপিএম দাবি করছে, নির্বাচনী ফল ঘোষণার পর রাজ্যজুড়ে বিজেপি এবং আইপিএফটির সমর্থকরা তাদের পার্টি অফিসে ভাঙচুর চালাচ্ছে, আগুন ধরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে তাদের সমর্থকদের বেশ কিছু বাড়িতেও ভাঙচুর করেছে। ভাঙা হয়েছে লেনিনের মূর্তিও।

যদিও বিজেপি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা অভিযোগ করেছে সিপিএম’র উপর। সিপিএম সমর্থকেরাই বিজেপির সমর্থকদের উপর হামলা চালাচ্ছে।

দেশটির আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, সোমবার রাতে সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক বিজন ধর অভিযোগ করেন, রাজ্য জুড়ে সন্ত্রাস চলছে। কয়েক জন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিকেও হুমকি দেওয়া হয়েছে।

সিপিএমের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সাব্রুম, শান্তিরবাজার, বেলোনিয়া, অমরপুর, করবুক, উদয়পুর, সোনামুড়া, বিশালগড়, জম্পুইজলা, গণ্ডাছড়া, লংতরাই, খোয়াই সমেত বিভিন্ন জায়গায় বেশ কয়েক জন আহত হয়েছেন। বেশ কিছু বাড়িতে আগুন ধরানো হয়েছে। বেশ কিছু পরিবার তাদের বাড়িঘর ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে।

অবশ্য সন্ত্রাসী কার্যক্রম শুরু হয়েছে নির্বাচনের ফল ঘোষণারও আগে। প্রচার পর্বের সময় থেকেই। দক্ষিণ ত্রিপুরার বিলোনিয়ার কলেজ স্কোয়ারে লেনিনের একটি মূর্তি ছিল। নির্বাচনী প্রচারে এসে সিপিএম নেতা প্রকাশ কারাত ওই মূর্তিতে ফুলও দেন।

এর ঠিক পরেই রীতিমতো বুলডোজার এনে সেই মূর্তিটি ভেঙে ফেলা হয়। গেরুয়া গেঞ্জি পরা একদল যুবক মূর্তি ভাঙার তদারকি করে।

সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর ইউক্রেনে যে ভাবে লেনিনের মূর্তি ভাঙা হয়েছিল জনতার চোখের সামনে।

সিপিএমের অভিযোগ, নির্বাচনের ফল বের হওয়ার পরে আগরতলা বিমানবন্দরের কাছে মার্কসের একটি মূর্তি ভাঙা হয়েছে। এ ক্ষেত্রেও অভিযোগের আঙুল বিজেপির দিকে।

যদিও রাজ্য বিজেপির সহ-সভাপতি সুবল ভৌমিক অভিযোগ করেন, তাদের কর্মীরা অত্যন্ত সংযত আচরণ করছেন। গণতান্ত্রিক পরিবেশ রক্ষা করার জন্য দিন-রাত পরিশ্রম করে চলেছেন। কিন্তু সিপিএম কর্মীরা তাদের উপর নানা ভাবে আক্রমণ চালাচ্ছেন।

তথ্য:

বিভাগ:

প্রকাশ: মার্চ ৬, ২০১৮

প্রতিবেদক: প্রবাসীর দিগন্ত

সর্বমোট পড়েছেন: 493 জন

মন্তব্য: 0 টি