বিএনপির টিকিট পেলেন তাবিথ আউয়াল

প্রবাসীর দিগন্ত | বিশেষ প্রতিবেদক : জানুয়ারী ১৬, ২০১৮

সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন উপ নির্বাচনে মেয়র পদে পুরোনো প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের ওপরই আস্থা রেখেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তাবিথ এর আগের নির্বাচনেও বিএনপির সমর্থনে প্রার্থী ছিলেন। যদিও ওই নির্বাচনে সরাসরি প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার সুযোগ ছিল না। তবে এবার ধানের শীষের পক্ষে লড়বেন তরুণ এই বিএনপি নেতা।

সোমবার রাতে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ দলের স্থায়ী কমিটির সমন্বয়ে গঠিত মনোনয়ন বোর্ড এই সিদ্ধান্ত নেয়। এর আগে মনোনয়ন প্রত্যাাশী পাঁচ প্রার্থীর সাক্ষাৎকার নেয় মনোনয়ন বোর্ড।

সাক্ষাৎকার শেষে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সংবাদ সম্মেলনে এসে জানান, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরশেন নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ডিএনসিসি উপ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তাবিথ আউয়াল। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) সর্বসম্মতভাবে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে তাবিথ আউয়ালকে মনোনয়ন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

‘পাঁচজন প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন, তাদের সবাই যোগ্য। তবে আমরা মনে করি, এই নির্বাচনে জয়লাভ করার জন্য সে (তাবিথ) যোগ্য ক্যান্ডিডেট (প্রার্থী)’, বলেন তিনি।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল ২০১৫ সালে ঢাকা উত্তরের নির্বাচনে বিএনপির সমর্থন নিয়ে মেয়র প্রার্থী হয়েছিলেন। যদিও নির্বাচনে মাঝপথে ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলে সরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি।

এর আগে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেন। এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মাহবুবুর রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু ও সাধারণ সম্পাদক আহসানউল্লাহ হাসানও পদাধিকার বলে বৈঠকে ছিলেন।

রাত দশটার দিকে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী দলের সহ-প্রকাশনা সম্পাদক শাকিল ওয়াহেদকে দিয়ে সাক্ষাৎকার শুরু করেন খালেদা। এরপর ক্রমান্বয়ে আসাদুজ্জামান রিপন, তাবিথ আউয়ালসহ অন্যরা সাক্ষাৎকার দেন।

ডিএনসিসিতে নির্বাচনের আগ্রহ প্রকাশ করে রোববার বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে দশ হাজার টাকা দিয়ে মনোনয়নপত্র নেন বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, সহ প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক শাকিল ওয়াহেদ, গতবারের দলীয় মেয়র প্রার্থী দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল, প্রাক্তন সাংসদ অবসরপ্রাপ্ত মেজর আখতারুজ্জামান (রঞ্জন) এবং মহানগর উত্তরের সভাপতি এম এ কাইয়ুম। ইতালীয় নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যা মামলার আসামী এম এ কাইয়ুমের পক্ষে মনোনয়নপত্র কেনেন তার প্রতিনিধি উত্তরের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু। সোমবার তারা ২৫ হাজার টাকা জামানত দিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন।  

আনিসুল হকের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন হবে। গত মঙ্গলবার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে।

তথ্য:

বিভাগ:

প্রকাশ: জানুয়ারী ১৬, ২০১৮

প্রতিবেদক: প্রবাসীর দিগন্ত

সর্বমোট পড়েছেন: 396 জন

মন্তব্য: 0 টি